,
সংবাদ শিরোনাম :
«» ব্যাপক রদবদলের গন্ধ বাংলাদেশের রাজনীতিতেঃ মূল্যায়ন হতে পারে আত্মত্যাগী নেতাদের «» ব্রিজ ভেঙে পাথরবোঝাই ট্রাক খালে «» এক ম্যাচেই তিন রেকর্ড রোনালদোর! «» রোনালদোর অভাব বুঝতেই দিলেন না রোনালদোর দিবালা-মোরাতারা «» উপজেলা চেয়ারম্যানের ক্ষমতা–সংক্রান্ত বিধান বাস্তবায়নে নির্দেশ «» ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের আঞ্চলিক কার্যালয় উদ্বোধন «» শিক্ষামন্ত্রী-ভিসিরা বিশ্ববিদ্যালয় খুলতে বৈঠকে «» স্বপ্ন দেখেন বুসকেতস মেসিকে ছাড়াও চ্যাম্পিয়নস লিগ নিয়ে «» বৈরাণ নদীর উপর নির্মিত ভাতকুড়া সেতু ভেঙে পড়ায় দুর্ভোগ গ্রস্থদের নৌকা দিয়ে পাশে দাঁড়ালেন “আরশেদ আলী রাসু” «» বৈঠক শুরু আজ ভোট ও আন্দোলনের কৌশল ঠিক করতে বিএনপির সিরিজ

জনগণকে ক্ষেপিয়ে সরকারকে আর গালি খাওয়াবেন না : নাজনীন আলম

জনগণকে ক্ষেপিয়ে সরকারকে আর গালি খাওয়াবেন না ; কর্মস্থলে ফিরতে সাময়িকভাবে হলেও সকল গণপরিবহন চালু করুন। আল্লাহর রহমত, জনসচেতনতা ও সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুহার এখন অনেক কমেছে। সরকার ভালো চিন্তা করে দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধ রেখেছিল। কিন্তু আমাদের বাড়ী যাওয়ার আবেগ ও দায়িত্বশীলদের ফাঁকি দিয়ে বা মেনেজ করে কিছু পরিবহন ব্যবসায়ী কর্তৃক মানুষের গলা কেটে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে নানা কৌশলে যানবাহন চালানোয় সেটা ভেস্তে গেছে। এবার বাড়ি যেতে মানুষের কষ্ট বেড়েছে শতগুন, খরচ বেড়েছে অন্তত দশগুন এবং সময় লেগেছে কয়েক গুণ বেশী। তার পরেও অনেক ক্ষেত্রেই ৩/৪টি বাস বদল করে (৩/৪ গুন বেশী মানুষকে আক্রান্তের সম্ভাবনা সৃষ্টি করে) মানুষ ঠিকই বাড়ী গিয়েছে। ভিড়ের চাপে পায়ে পিষ্ঠ হয়ে এবং স্পীডবোর্ড দূর্ঘটনায় বেশ কিছু মানুষের মর্মান্তিক মৃত্যু হলেও ঈদে বাড়ী যাওয়া ঠেকানো যায়নি। পরিবহন সংকট ও লকডাউন ১০% মানুষকেও আটকাকে পারেনি। ঢাকা শহর এখন ফাঁকা।

তাহলে জনগণকে কষ্ট দিয়ে এবং ক্ষেপিয়ে তুলে এভাবে পরিবহন বন্ধ রেখে কি লাভ? ঢাকায় আরাম-আয়েশে থেকে লকডাউনের অযুহাতে সরকারকে এসব সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য করা সহজ হলেও জনগণকে তা মানানো খুবই কঠিন! রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারকদের এ বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করা দরকার।

২৩ মে পর্যন্ত লকডাউন বাড়ানো হয়েছে। ঈদে প্রিয়জনের টানে বাড়ী যেতে মানুষ যেমন ব্যাকুল ছিল, তেমনি রুটী রুজীর তাগিদে কর্মস্থলে ফিরতেও এখন তারা মরিয়া হয়ে উঠবে। তাই ভিড়ের চাপে আর একটি প্রাণও যেন না হারায় সরকারের সেদিকে খেয়াল রাখা জরুরী। দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধ রাখা নিয়ে সরকারের ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছে; সর্বস্তরের যাত্রীরা অকথ্য ভাষায় গালাগাল দিচ্ছে।

কিছু অসাধু পরিবহন ব্যবসায়ী জনগণের গলা কাটার সুযোগ যেন না পায়। কোভিডে সংকটে থাকা মানুষের অর্থ অপচয় ও সময় আর নষ্ট করাবেন না; তাদের অমানবিক কষ্ট আর বাড়াবেন না; জনগণকে ক্ষেপিয়ে দেয়ার সুযোগ আর করে দেবেন না। কর্মস্থলে ফিরতে কিছু দিনের জন্য হলেও স্বাস্থবিধি মেনে সারা দেশে রেলসহ সব ধরনের গণপরিবহন চালু করুন। সরকারকে গালি খাওয়ানোর মত সিদ্ধান্ত হতে সরে আসুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

যোগাযোগঃ

মীর প্লাজা ( ৩য় তলা ), ৮৮  সি কে, ঘোষ রোড , ময়মনসিংহ ।

মোবাইল: ০১৭১১-৬৮৪১০৪

ই-মেইল: matiomanuss@gmail.com