Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

,
সংবাদ শিরোনাম :
«» ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব-এর ৪র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উৎসব «» আজ ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব-এর ৪র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী : গুণীজন সম্মাননা ‘২০১৯ পাচ্ছেন ১৩ গুণী ব্যক্তিত্ব «» অস্ত্র চাঁদাবাজিসহ একাধিক মামলার আসামি মানিক গ্রেফতার «» ডাকসু’র জিএস ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাঃ সম্পাদক রব্বানী’র জন্মদিনে বাকৃবি শাখার দৃষ্টিনন্দন আয়োজন «» কলমের স্বপ্নভঙ্গ- ৭১’এর মতো আরেকটি যুদ্ধ করতে হবে, তরুণ প্রজন্ম তৈরি থেকো- ফ্যাক্ট রোহিঙ্গা «» অক্সিজেনের ফ্যাক্টরিতে আগুন : আমাজন জঙ্গল «» পরিচ্ছন্ন নগরী চাই, ডেঙ্গু মুক্ত জীবন চাই «» ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা: এমন নৃশংস ঘটনার পুনরাবৃত্তি আর চাই না «» বিভাগীয় কমিশনার খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমানের সাথে কিছু সময় «» রিতুকে ফিরে পাওয়ার আকুতি ; সন্ধান চাই

“ময়মনসিংহ নগরীতে বন্যা “॥ অধঘন্টার বৃষ্টিতে পানিবন্দি নগরবাসী

বিল্লাল হোসেন প্রান্ত ॥ সচিত্র বিশ্লেষণ ॥
“ময়মনসিংহ নগরীতে বন্যা”। ময়মনসিংহ ডুবছে। আধঘন্টার বৃষ্টিতে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে নগরবাসী।
রবিবার হঠাৎ বৃষ্টি। শহরের মোড়গুলো যেন এক মোহনায় পরিনত হয়েছে। গাঙ্গিনারপাড়, নাটকঘরলেন,মাদ্রাসা কোয়ার্টার,নতুনবাজার,ধোপাখলাসহ নগরীর প্রধান প্রধান সড়কপথ পরিনত হয়েছে পানিপথে। রাস্তা,অলিগলি,ফুটপাত দখল করে নিয়েছে পানি। ‘মনে হয় বন্যায় আক্রান্ত পানিবন্দি জেলখানার চরের মানুষগুলো এবার ত্রাণ নিয়ে নগরীতেই আসবে’। বড় সুন্দর লাগে দেখতে। ময়মনসিংহ নগরীর এ রূপ চলমান। যেন নিয়মেই পরিনত হয়েছে।

গাঙ্গিনারপাড়

এ নিয়ে জেলা নাগরিক আন্দোলনের পুরোধা এড. আনিসুর রহমান খান গত বছর জুন মাসের ৬ তারিখে কিছুটা বিরক্তির শুরেই বলেছিলেন-ময়মনসিংহ শহরটি আর বাসযোগ্য নয়। তিনি পরিবেশ দিবসে পরিবেশ রক্ষা ও উন্নয়ন আন্দোলনের ১ম প্রতিষ্ঠিা বার্ষিকীতে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেছিলেন। ১৪ মাস আগের তিনি কিছু সাজেশনও তুলে ধরেছিলেন। এমন মন্তব্য কথার কথাই রয়ে গেছে। বদলায়নি শহর-নগর।
ময়মনসিংহ পৌরসভার ৫ বছরের উন্নয়ন, ৫ মিনিটের বৃষ্টিতে ধুয়ে মুছে যায়। উন্নয়নের বন্যায় ভেসে যায় শহর। ভাসতে থাকে জলবন্দী মহানগর। দিনে -দুপুরে শহরচিত্রে “অনুন্নয়নের অন্ধকার” নেমে আসে।
জলাবদ্ধতা রেখে যাওয়ার সাফল্য পৌরসভা দাবি করতেই পারে। পানিনিস্কাষন ব্যবস্থা,ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে এতাদিন যাবৎ গৃহীত প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়ন নগরজীবনে প্রভাব রেখেছে। বৃষ্টি হলেই শহরে নামবে আষাঢ়ী ঢল।

চরপাড়া

ময়মনসিংহ পৌরসভা এখন মেয়াদোত্তীর্ন। পৌরসভা মহানগর হয়ে যাবে। সে অপেক্ষায় পৌ নির্বাচন আর হবে না। তবে জলমগ্ন শহরে ডুববে পৌর উন্নয়নের ফিরিস্তি। পরবর্তী নির্বাচনে জলাবদ্ধতার ইস্যুটি ক্ষমতাসীন দলের মনোনীত প্রার্থীর বিপক্ষে কথা বলবে।
বাস্তবতা হচ্ছে পৌরসভা জলাবদ্ধতা দুরীকরণ প্রজেক্টে কোটি কোটি টাকা পেয়েছে। জলাবদ্ধতা দূর করার টাকা জলে গেছে। শহরের পানি নিস্কাষন খাল দখল হয়েছে,সংকীর্ন হয়েছে,সেখানে আর পানি ধরে না। বৃষ্টি পানি আপসারনের গতি তাই ধীরগতি সম্পন্ন। উন্নয়ন প্রকল্পের আড়ালে দুর্নীতি,লুটপাট হয়েছে। পৌর উন্নয়নের কাজগুলো ক্ষমতাসীনরা তাদের নিজ লোককে দিয়েছে। তারা আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে। তাদের কেউ কেউ নগরীর বুকে বিশাল বিশাল বিল্ডং করে নিজের বাড়ী নির্মান করেছে। এর মানে হচ্ছে দুর্নীতি হয়েছে। ৫ মিনিটের বৃষ্টিতে পানি নামতে কোথাও ৩/৪ঘন্টা সময় লাগে। আগে যে রোডে বৃষ্টির পানি জমতো না এবার সেই রোডেও জলাবদ্ধতা।

চামড়াগুদাম

নগরীর মাদ্রাসা কোয়ার্টার থেকে একজন মাটি ও মানুষকে পানিবন্দি এলাকার চিত্র পাঠিয়েছেন। জেলা পরিষদের স্টাফ কোয়াটার বিল্ডিংএ পানি ডুকে পানিবন্দি মানুষে ছবি পাঠিয়েছেন তিনি। প্রশ্ন করেছেন। উত্তর দিতে পারিনি। জানতে চেয়েছেন এর থেকে উত্তরণ পাব কি কোন দিন? আমরা উনাকে বলতে চাই। ভাই উন্নয়নে দেশ বদলাতে চান উন্নয়নের আলোকবর্তিকা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। আর সে পথে বাধা যারা তারা পাল্টালেই পাল্টাবে এ চিত্র। একই চিত্র তৈরি হয়েছে সিকে ঘোষ রোডের সাদিয়া ষ্টোরের। দোকানে পানি ঢুকে ক্ষতির শিকার হয়েছেন তিনি। উপয় অন্তর না পেয়ে দোকানের মালিক রুনু ভাই নিজেই দোকান থেকে পানি সেচ শুরু করেন।
আমাদের আজকের এই রিপোর্টটিও হয়তোবা উনারা একপেশে বলেই চালিয়ে দিবেন। কিন্তু তথ্য না জানা এমন অনেক ভূক্তভোগি মানুষ একপেশে ভূগান্তির কবলেই পড়ে আছে যারা জবাব দিবে ভোটের মাঠে। বিশ্লেষণ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial