Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

,
সংবাদ শিরোনাম :
«» ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব-এর ৪র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উৎসব «» আজ ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব-এর ৪র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী : গুণীজন সম্মাননা ‘২০১৯ পাচ্ছেন ১৩ গুণী ব্যক্তিত্ব «» অস্ত্র চাঁদাবাজিসহ একাধিক মামলার আসামি মানিক গ্রেফতার «» ডাকসু’র জিএস ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাঃ সম্পাদক রব্বানী’র জন্মদিনে বাকৃবি শাখার দৃষ্টিনন্দন আয়োজন «» কলমের স্বপ্নভঙ্গ- ৭১’এর মতো আরেকটি যুদ্ধ করতে হবে, তরুণ প্রজন্ম তৈরি থেকো- ফ্যাক্ট রোহিঙ্গা «» অক্সিজেনের ফ্যাক্টরিতে আগুন : আমাজন জঙ্গল «» পরিচ্ছন্ন নগরী চাই, ডেঙ্গু মুক্ত জীবন চাই «» ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা: এমন নৃশংস ঘটনার পুনরাবৃত্তি আর চাই না «» বিভাগীয় কমিশনার খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমানের সাথে কিছু সময় «» রিতুকে ফিরে পাওয়ার আকুতি ; সন্ধান চাই

প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে ৫ প্রতিবন্ধী

বিল্লাল হোসেন প্রান্ত ॥ মাটি ও মানুষ ॥
এখন প্রধানমন্ত্রীই তাদের শেষ ভরসা। তারা ৫ জন মেধাবী। ৩৪ বিসিএসএ উর্ত্তীন এরা। প্রতিবন্ধী কোটায় উর্ত্তীন হয়েও চাকরির সোনার হরিণ ধরতে পারেনি তারা। অবশেষে তারা লিখেছেন প্রধানমন্ত্রী বারাবরে খোলা চিঠি। তারা প্রত্যাশা জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবসে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করার একটা সুযোগ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এসেছে তাদের চিঠি। নিচে সই খোলা চিঠি হুবহু তুলে ধরা হলো: জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবসে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ চান ৩৪ তম বিসিএসে উত্তীর্ণ ৫ প্রতিবন্ধী ২৯ নভেম্বর, ২০১৭।
বরাবর
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
ঢাকা, বাংলাদেশ
বিষয়: প্রতিবন্ধীদের প্রথম শ্রেণির চাকরিতে নিয়োগ প্রসঙ্গে।
মাননীয়া
আমাদের সালাম জানবেন।
আমরা ৫ প্রতিবন্ধী প্রার্থী প্রায় পাঁচ বছর ধরে সরকারি চাকরিতে নিয়োগের অপেক্ষায় দিন পার করেছি। নিয়োগ যখন মোটামুটি দ্বারপ্রান্তে, তখনই আবার দীর্ঘসূত্রিতার আশঙ্কায় পড়েছি। তাই আপনার কাছে এই চিঠি লিখছি।
আপনার আমলেই, আপনার নির্দেশেই প্রথমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে প্রতিবন্ধীদের জন্য এক শতাংশ কোটা নির্ধারণ করে। ওই কোটা নির্ধারিত হওয়ার কারণেই বিপুল সংখ্যক প্রতিবন্ধী প্রার্থী প্রথম শ্রেণির চাকরির আশায় বুক বাধে; এবং বিসিএসের মতো সম্মানজনক পরীক্ষায় অংশ নেওয়া শুরু করে।
একই আশায় আমরাও পাঁচ প্রতিবন্ধী প্রার্থী ২০১৩ সালে ৩৪তম বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিই। প্রিলিমিনারি, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা শেষে ২৯ অগাস্ট, ২০১৫ সালে সরকারি কর্ম কমিশন চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করে। অবাক হয়ে সেখানে দেখি, চূড়ান্ত ফলে মাত্র তিনজন প্রতিবন্ধীকে নিয়োগ দেওয়া হয়। পরে আমরা জানতে পারি,
এমনকি যে তিনজনকেও নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে তারা সবাই মেধা কোটায় সুযোগ পেয়েছেন, প্রতিবন্ধী কোটাতে নয়।
অর্থ্যাৎ, কোটায় সুযোগ থাকলেও সরকারি কর্ম কমিশন একজনকেও প্রতিবন্ধী কোটায় সুপারিশ করেনি!
পরে নানাভাবে আরও খোঁজ নিয়ে দেখি, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সার্কুলারের পরও বিসিএস প্রথম শ্রেণির ক্যাডারে কখনোই প্রতিবন্ধী কোটায় কোনো প্রার্থীকে নিয়োগ দেওয়া হয়নি। অথচ আমরা সবাই প্রতিবন্ধী কোটাতেই আবেদন করেছিলাম।
যদি আমাদের নিয়োগ না-ই দেওয়া হবে, তাহলে কেন আমরা দিনের পর দিন প্রস্তুতি নিয়ে একের পর এক পরীক্ষায় অংশ নিয়েছি। আপনি জানেন, প্রস্তুতি, চলাচল এমনকি পরীক্ষা দেওয়ার ক্ষেত্রেও অন্যদের তুলনায় আমাদের কত বেশি কষ্ট করতে হয়। তারপরও আমরা পরীক্ষা দিয়েছিলাম, কেননা, আপনি এবং আপনার সরকার প্রতিবন্ধীদের জন্য আন্তরিক, এবং আপনার সময়েই প্রতিবন্ধীদের নিয়োগের অচলায়তন ভাঙা সম্ভব, এই স্বপ্ন থেকে।
কোনো প্রার্থীকেই প্রতিবন্ধী কোটায় নিয়োগ না দেওয়ায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জারি করা ২০১২ সালের সার্কুলারের (০৫.০০.০০০০.১৭০.০৭.০৫৭.১১-১৫, জারির তারিখ- ১২ জানুয়ারি, ২০১২) ব্যাখ্যা ও প্রতিবন্ধীদের কেন নিয়োগ দেওয়া হবে না, এটা জানতে চেয়ে ২০১৫ সালের ৫ নভেম্বর হাইকোর্টে পিটিশন (রিট পিটিশন ১১১৭২/২০১৫) করি।
দীর্ঘ ২ বছর ধরে চলমান যুক্তি ও তর্কের পর মাননীয় আদালত গত ২৯ অক্টোবর, ২০১৭ প্রতিবন্ধীদের সরকারি চাকরির প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে নিয়োগে এক শতাংশ কোটা সংরক্ষণ এবং ৩৪তম বিসিএসের প্রথম শ্রেণির ক্যাডার পদে আমাদের পাঁচ প্রার্থীকে ৬০ দিনের মধ্যে নিয়োগের নির্দেশ দেন।
এত দিনের চেষ্টার পর যখন আমরা নিয়োগের আশায় বুক বাধলাম, তখনই সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট অন রেকর্ড ফর পিটিশনারের এক চিঠিতে জানতে পারি, সরকার এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের প্রস্তুতি নিচ্ছে। চিঠিটি আমাদের স্তব্ধ করে দেয়।
যে শেখ হাসিনার সরকারের আমলে প্রতিবন্ধীদের অধিকার আদায়ে স্বাধীনতার পর সবচেয়ে বেশি কাজ হয়েছে; যে সরকার আমাদের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে নিয়োগের জন্য জনপ্রশাসনকে নির্দেশ দেয়, যারা অচল প্রতিবন্ধীদের জন্য ভাতার ব্যবস্থা করেছে, দিয়েছে নানান ধরণের সুবিধা, তাদেরই পক্ষ থেকে কেন আমাদের নিয়োগ ও প্রতিবন্ধীদের জন্য এক শতাংশ কোটা সংরক্ষণের আদালতের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল হবে? আমরা বুঝতে পারি না।
সরকারি ও আইনী প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন করার যোগ্যতা আমাদের নেই, দৃষ্টতারও সাহস রাখি না। রায় প্রকাশ, আপিল, রিভিউ সব মিলিয়ে আরও কত সময় পাড়ি দিয়ে যে স্বপ্ন ছুঁতে হয়, কেবল সেই আশঙ্কাই আমাদের পীড়া দিচ্ছে।
আপনি হয়তো আমাদের কষ্ট কিছুটা অনুধাবন করতে পারবেন; প্রত্যেকটি পরীক্ষার আগে আমাদের এবং আমাদের পরিবারের সদস্যদের কি পরিমাণ সংগ্রাম করতে হয়েছে। অনুযোগ নেই, তবু ভাবুন, পরীক্ষার জন্য অন্যদের তুলনায় কত বেশি কষ্ট করে আমাদের প্রস্তুতি নিতে হয়েছে; বাসা থেকে বের হয়ে কি প্রচন্ড ইচ্ছাশক্তির জোরে আমরা শেষ পর্যন্ত পরীক্ষার কেন্দ্রে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছি, অন্যদের তুলনায় বেশি বাধা অতিক্রম করে নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই আমাদের পরীক্ষা দিতে হয়েছে। এক পরীক্ষা শেষ করে অন্য পরীক্ষার জন্য ফের একইরকম করে প্রস্তুতি নিতে হয়েছে।
জীবনের অনেকটা সময় আমরা এভাবেই একের পর এক প্রতিবন্ধকতা টপকে সামনের দিকে অগ্রসর হয়েছি। শেষ মুহুর্তে, যখন আমরা অনেকটাই নিশ্চিন্ত যে, পরিশ্রমের ফসল আমরা অর্জন করতে যাচ্ছি। ঠিক তখনই আবার ধাক্কা।
আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবসের প্রাক্কালে, আপনার কাছে আমাদের অনুরোধ, এই সঙ্কটে আমাদের সাহায্য করুন। যেন, আমরা মাথা উঁচু করে বাঁচতে পারি। বলতে পারি, শেখ হাসিনার সরকারই আমাদের প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে বেঁচে থাকার সুযোগ করে দিয়েছে।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনার মূল্যবান সময় থেকে কিছুটা দিয়ে আমাদের চিঠিটি পড়েছেন, এজন্য আপনার কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। প্রতিবন্ধীদের জন্য আপনার সহায়তার হাত আরও প্রসারিত হোক, আরও আরও প্রতিবন্ধী সমাজের মূলস্রোতে যুক্ত হয়ে দেশ গড়ার কাজে তাদের মেধাকে কাজে লাগানোর সুযোগ পাক- এটাই আমাদের প্রত্যাশ্যা।
আপনাকে আবারও ধন্যবাদ জানাচ্ছি।
বিনীত নিবেদক-
১. মীর মোশাররফ হোসেন
০১৭১৫৫৮৪০৩৩
২. আবিদ হোসেন
০১৯১৪১১৯৬৯৩
৩. এস এম জাহিদুল ইসলাম
০১৭৩৭০২৭৭২৬
৪. বাবুল চন্দ্র দাস
০১৯২৩৭৪১৩৮৮
৫. এনায়েত কবির
০১৭১৭৫৫৮৩০১
৩৪তম বিসিএস পরীক্ষায় সব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও নিয়োগের জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত না হওয়া ৫ প্রতিবন্ধী প্রার্থী।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial