,
সংবাদ শিরোনাম :
«» শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদের শুভেচ্ছা বার্তা «» ময়মনসিংহে মাননীয় বিরোধীদলীয় নেতার পক্ষে শারদীয় দূর্গা পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করলেন- জাহাঙ্গীর আহমেদ «» কলমাকান্দায় আর্থিক সঙ্কটে প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা চেয়ে ছাত্রলীগ কর্মীর ফেসবুকে পোস্ট, ঘরের আঁড়ায় ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার «» ‘ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনকারীদের জন্য আ. লীগের দরজা চিরতরে বন্ধ’- ওবায়দুল কাদের «» প্রবীণ আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের মৃত্যুতে বিরোধীদলীয় নেতার শোক «» শান্তর আগমনে নেতাকর্মীরদের জন স্রোত; বোররচরে উপ-নির্বাচনে নৌকার জনসভা «» ধর্ষণসহ সকল নারী নির্যাতন প্রতিরোধে দেশব্যাপী একযোগে বিট পুলিশিং সমাবেশ «» পর্দার অন্তরালে থেকে যাওয়া একজন প্রকৃত বীর মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির আবেদন পরিবারের «» আমির আহমেদ চৌধুরী রতনের মৃত্যুতে বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ এমপির শোক «» ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব-এর ৫ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত, ৩১ জন মহৎ প্রাণ করোনা-যোদ্ধাকে সম্মাননা প্রদান

জেলা পুলিশের সাফল্যে সক্রিয় একজন ওসি তদন্ত খন্দকার শাকের

বিল্লাল হোসেন প্রান্ত ॥
ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি তদন্ত খন্দকার শাকের আহমেদ একই থানায় ওসি তদন্ত হওয়ার আগে ছিলেন ওসি অপারেশন্স দায়িত্ব পালনে নিষ্ঠাবান। নিজ কাজে নিমগ্ন একজন নিবেদিত প্রাণ ইন্সপেক্টর। উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ যখন তার উপর যে দায়িত্ব প্রদান করেন তা পালনে সাফল্য অর্জনই তার কাজ। আর ভাল কাজের সাফল্য অর্জনে তিনি ক্রমাগত সফল। এক্ষেত্রে তিনি যেমন পুলিশ বিভাগের মূল্যায়নী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হচ্ছেন, জনগণও তার প্রশাংসা করেন।
আর ইদানিং যখনই কোন পুলিশ জনপ্রিয় হয়ে উঠে তখনই বুঝতে হয় কোথায় কোন ষড়যন্ত্র হচ্ছে। তেমনি মহল বিশেষের টার্গেট কি এই অফিসারের প্রতিও। জনবান্ধব পুলিশের সাফল্যকে গণশত্রুরা মেনে নিতে পারেন না। অপরাধীরা সুকৌশলে কলকাটি নাড়ে। হীনমন্যরা অপব্যাখ্যা করে। এভাবেই আলোচনার সাথে সমালোচনা জুড়ে যায় পুলিশের নামের সাথে।
ওসি তদন্ত খন্দকার শাকের আহমেদ কোতোয়ালী থানায় এ পদে মাত্র ৪ মাস কর্মরত থাকা অবস্থায় মাদক বিরোধী অভিযানসহ, সামাজিক শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষা, বিভিন্ন মামলার তদন্ত পরিচালনায় দায়িত্ব পালনে সাফল্য অর্জন করেছেন।
পুলিশী দায়িত্ব পালনে সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে অসংখ্যবার উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে পুরস্কার লাভ করেন। ময়মনসিংহ রেঞ্জে ১ বার ও ময়মনসিংহ জেলায় ১ বার শ্রেষ্ঠ ইন্সপেক্টর এর পুরস্কার পান এই ৪ মাসে। এর আগে ময়মনসিংহ জেলায় ১৫ বার সেরা পুলিশ হিসাবে পুরস্কার বিজয়ী খন্দকার শাকের আহমেদ ইতিপূর্বে আইজিপি পদক লাভ করেন।
মানুষের কাছে নীতিবান পুলিশ হিসেবে তার সুনাম রয়েছে। লোভ লালসা, উৎকোচবাজী, সামারি বাণিজ্য, অনিয়ম, দুর্নীতির বিপরীতে তার অবস্থান।
পুলিশ প্রশাসনের নীতি মোতাবেক একজন জনবান্ধব পুলিশ, মানবিক পুলিশ হিসেবে ভুমিকা রাখতে তিনি আন্তরিক। আর এক্ষেত্রে মনমানসিকতা ইতিবাচক। ছাত্র জীবনেই তিনি ছিলেন দেশের একজন নামকরা স্পোর্টসম্যান। ফুটবলার হিসেবে তিনি শেখ জামাল ক্লাব, ধানমন্ডি, ব্রাদার্স ইউনিয়ন, ওয়ারি ক্লাব, পিডাব্লিওডি ক্লাব, ইয়ংম্যান ফকিরাপুল ক্লাবের হয়ে খেলেন। দক্ষ ক্রীড়াবিদ হিসেবে ছাত্রজীবনেই তিনি ৪০ লক্ষ টাকা উপার্জন করেছিলেন। হয়েছিলেন প্রশংসিত। তিনি বর্তমানে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের ফুটবল টিমের হয়ে খেলে থাকেন। অসংখ্য খেলায় জেলা পুলিশ ফুটবল টিমের জন্য জয় ছিনিয়ে আনতে দক্ষ খেলোয়াড় ও ক্যাপ্টেন হিসাবে তার কৃতিত্ব রয়েছে।
জাহাঙ্গীর বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্সসহ মাস্টার ডিগ্রি অর্জনের পর ২০০৬ সালে তিনি পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন। শিক্ষাজীবন ও ক্রীড়াজীবন থেকেই তিনি আদর্শিক মূলবোধে উজ্জীবিত। শেরপুর জেলার নকলার সন্তান খন্দকার শাকের আহমেদের সহধর্মিনী আতিকা সুলতানা আশা ময়মনসিংহ আনন্দমোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের মাস্টার্স শেষ বর্ষের ছাত্রী। ইংরেজীতে অনার্সে ফাস্টক্লাস ফাস্ট হন। ২ সন্তান রয়েছে এই দম্পত্তির ।
একজন পেশাদার পুলিশ অফিসার হিসেবে ওসি তদন্ত খন্দকার শাকের আহমেদ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ পালনের মাধ্যমে দায়িত্বশীলতা ও নিষ্ঠার ক্ষেত্রে সাফল্যের যে নিদর্শন রাখছেন তা এক কথায় অনস্বীকার্য।
তার সাফল্যের অনেক গল্পই পুলিশী কিংবদন্তী। সামাজিক বিরোধ নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে যে সব মামলার দায়িত্ব তার উপর বর্তে সেখানে তিনি বিচক্ষনতা ও সততার নজির রাখায় আলোচিত। তিনি ময়মনসিংহ জেলায় আসার আগে পুলিশ উপপরিদর্শক থাকা অবস্থায় জামালপুরে ট্রেন ডাকাত চক্রের চাঞ্চল্যকর এর গ্রুপ হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচন করে সারা দেশে আলোচিত হয়েছিলেন। সে সময় ময়মনসিংহ পুলিশ খন্দকার শাকেরকে নিয়ে গৌরব করে উদাহরন টানতেন অনেক গল্পে।
বিরোধ নিষ্পত্তিতে থানায় দেন দরবারের মাধ্যমে সমস্যার সমাধানে পুলিশী ভূমিকা গ্রহণযোগ্যতা ও প্রশংসা পাচ্ছে। এক্ষেত্রে কোতোয়ালী থানায় তার ভুমিকায় মানুষ সন্তুষ্ট। তবে এই ক্ষেত্রে তার সমালোচনা আছে। ‘‘তিনি টাকা পয়সা খেতে পারেন না।’’ প্রভাবশালী বা অপরধীরা তাকে ম্যানেজ করতে ব্যর্থ। আর এজন্যই মহল বিশেষ তার বিপক্ষে সমালোচনায় মুখর।
দেখা যাচ্ছে দক্ষতা ও সাফল্যের জন্য আলোচিত পুলিশ মহল বিশেষের টাগের্টে পরিনত হওয়ার মাত্রা বাড়ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial