,
সংবাদ শিরোনাম :

নুরুজ্জামান খোকনের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা চাইলো জেলা আওয়ামী লীগ

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

সরকারী কর্মকান্ড ও দল বিরোধী অবস্থান বিষয়ে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি এ বি এম নুরুজ্জামান খোকনের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত গ্রহনে কেন্দ্রীয় কমিটি বরাবরে সুপারিশ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ।

 

 

দলীয় প্যাডে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এড. জহিরুল হক খোকা ও সাধারণ সম্পাদক এড. মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে সিদ্ধান্ত গ্রহনের কথা বলা হয়েছে। যা ইতিমধ্যে ময়মনসিংহের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিনত হয়েছে।

 

 

লিখিত চিঠিতে বলা হয়েছে, “গত ৫ মে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৭ মে বিকাল ৪ টা ৫০ মিনিটে জনাব এ বি এম নুরুজ্জামান নিজ আইডি থেকে বলে,”ব্যালটে চুরি করা যায়,আর ইভিএম(EVM) এ করা যায় ডাকাতি” ব্যাক্তিগত মতামত “। তিনি তার বক্তব্যে গত জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন। কয়েকটি মিডিয়ার নাম উল্লেখ্য করে বলেন বিষয়টি নিয়ে ঢাকা ও স্থানীয় কয়েকটি মিডিয়ায় নিউজ হয়েছে। সাংবাদিক প্রান্ত চৌধুরী  প্রশ্ন করলে তিনি বলেছেন, এটি অবশ্যই আমার দেয়া স্ট্যাটাস, দায় দায়িত্ব নিয়েই দিয়েছি। আপনারা খবর নিয়ে দেখেন ঘটনা সত্য কি না?”।

 

 

পত্রে আরও বলা হয়েছে, “তিনি এভাবে গত সংসদ নির্বাচন ও সিটি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করে সরকার বিরোধী কর্মকান্ড করে নিজের পক্ষে সাফাই গেয়েছেন। তিনি সিটি নির্বাচনে পরাজিত প্রার্থীদের সরকার ও আওয়ামী লীগ বিরোধী ভূমিকা গ্রহনের জন্য মারাত্বকভাবে উসকিয়ে দেয়ার পক্ষে কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি সরকারের কর্মকান্ডকে প্রশ্নের সম্মুখীন করে তুলেছেন”।

 

 

জেলা আওয়ামী লীগ এবিষয়ে কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। এবং অতি দ্রুত এ বি এম নুরুজ্জামান খোকনের বিরুদ্ধে যথাযথ সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহনের কথা বলেন।

 

 

 

এ পত্রের সত্যতা নিশ্চিতে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এড. মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তবে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এড. জহিরুল হক খোকা খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, “এ বিষয়ে কেন্দ্র ব্যবস্থা নিবে”। “আমরা যা আছে তাই তুলে ধরেছি”।

ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক বরাবর সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য যে পত্রটি লিখেছেন তাতে নুরুজ্জামান খোকন এর “ব্যক্তিগত মতামত” লিখেছেন। তবে স্ট্যাটাসে নুরুজ্জমান খোকন “ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা…” শব্দ লিখেছিলেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial