,
সংবাদ শিরোনাম :
«» রাজধানীতে পুলিশ-ছাত্রদল ব্যাপক সংঘর্ষ, টিয়ারশেল-গুলিতে আহত ৩৫ «» ইব্রাহিম খালেদের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক «» রাজধানীর নীলক্ষেত মোড় দ্বিতীয় দিনের মতো অবরোধ করে প্রতিবাদ শিক্ষার্থীরাদের «» আইপি টিভি ‘নক্ষত্র বাংলা’র লোগো উন্মোচন «» আইজিপির সঙ্গে বিএনপির বৈঠক বৃহস্পতিবার «» শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ এমপি’র বাণী «» রাজনৈতিক বেনিয়াদের বিরুদ্ধে ঐক্যের ডাক, উচ্ছ্বাসে উত্তাল বিদ্রোহী মৌজা আকুয়া «» দি সবুজ বাংলা কুরিয়ার সার্ভিস লিঃ ময়মনসিংহ শাখার শুভ উদ্ভোধন «» মার্চ-এপ্রিলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত- প্রধানমন্ত্রী «» দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় বাংলাদেশের দুই ধাপ অবনতি

দুদিনের মধ্যে গেজেট, এরপর এইচএসসির ফল : শিক্ষামন্ত্রী

মাটি ও মানুষ: দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে পরীক্ষা ছাড়া ফলাফল প্রকাশ এবং পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হওয়ার পথে বিদ্যমান আইনি বাধা দূর করতে প্রয়োজনীয় বিধানের সংযোজন করে সংসদে তিনটি বিল পাস করা হয়েছে। আগামী দুদিনের মধ্যে আইনটি গেজেট আকারে প্রকাশ করা হবে। আর তার পরপরই এইচএসসির ফল প্রকাশ করা হবে বলে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানিয়েছেন।

 

 

আজ রবিবার জাতীয় সংসদে আইন সংশোধনের বিল পাসের পর এ খবর জানান তিনি।

 

 

শিক্ষামন্ত্রী রবিবার সংসদে ‘ইন্টারমিডিয়েট অ্যান্ড সেকেন্ডারি অ্যাডুকেশন (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল-২০২১’ পাসের প্রস্তাব করেন। পরে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়। পাসের সময় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘বিলটি পাসের পর প্রজ্ঞাপন করতে দুদিন সময় লাগবে। এর পরই আমরা দ্রুত ফল প্রকাশ করব।

 

 

এর আগে গত ১৯ জানুয়ারি এ ৩টি বিলের ওপর উপস্থাপিত শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির রিপোর্টে উত্থাপিত আকারো বিল তিনটি পাসের এ সুপারিশ করা হয়।

 

 

বিল তিনটি হচ্ছে ইন্টারমিডিয়েট অ্যান্ড সেকেন্ডারি অ্যাডুকেশন (সংশোধন) বিল, ২০২১, বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড (সংশোধন) বিল, ২০২১ এবং বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড (সংশোধন) বিল, ২০২১।

 

 

বিদ্যমান আইন অনুযায়ী পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণ ও ফলাফল ঘোষণার বিধান রয়েছে। বৈশ্বিক মহামারি করোনাকালে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না হওয়ায় শিক্ষা কার্যক্রমের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে বিল তিনটিতে বিদ্যমান আইন সংশোধন করা হয়েছে। সংশোধিত বিল তিনটিতেই পরীক্ষা সংক্রান্ত বিদ্যমান বিধানের পরে, তবে করোনা মহামারি বা অতিমারিসহ ‘এক্ট অব গড’ তথা বিশেষ পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নেয়া সম্ভব না হলে পরীক্ষা ছাড়া অথবা সংক্ষিপ্তাকারে পরীক্ষা গ্রহণ করে পরবর্তী শ্রেণিতে উত্তীর্ণ ও ফলাফল ঘোষণা করতে পরবে বলে বিধান করা হয়েছ।

 

 

 

জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম, মুজিবুল হক, পীর ফজলুর রহমান, শামীম হায়দার পাটোয়ারী, রওশন আরা মান্নান, বিএনপির হারুনুর রশীদ, রুমীন ফারহানা এবং গণফোরামের মোকাব্বির খান বিল ৩টির ওপর জনমত যাচাই, বাছাই কমিটিতে প্রেরণ ও সংশোধনী প্রস্তাব আনলে তা কণ্ঠ ভোটে নাকচ হয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial